আত্মহত্যা সম্পর্কে একটি কথা প্রচলিত আছে যে এটি ক্ষমার অযোগ্য মহাপাপ। এমনকি এটি শির্ক পর্যায়ের একটি গুনাহ হিসাবেও কেউ কেউ মনে করেন। আসলেই কি আত্মহত্যা কি শিরকের পর্যায়ের গুনাহ?এটি কি ক্ষমার অযোগ্য মহাপাপ? বিস্তারিত জানতে চাই।

উত্তরঃ আত্মহত্যা নি:সন্দেহে মহাপাপ (কবিরা গুনাহ) এবং মহান আল্লাহর কর্মে হস্তক্ষেপের শামিল।
তবে তা শিরক নয়।

জীবন-মরণের মালিক একমাত্র আল্লাহর তাআলা। সুতরাং কেউ যদি নিজের প্রতি অবিচার ও সীমালঙ্ঘন বশত: নিজেকে মৃত্যুর দিকে ঢেলে দেয় তাহলে সে আল্লাহর কর্মে হস্তক্ষেপ করল।

আর যে আল্লাহর কর্মে হস্তক্ষেপ করে আল্লাহ তাআলা তাকে শাস্তি প্রদান করবেন।

আত্মহত্যার শাস্তিঃ

আল্লাহ রাব্বুল আলামীন বলেন,

وَلَا تَقۡتُلُوٓاْ أَنفُسَكُمۡۚ إِنَّ ٱللَّهَ كَانَ بِكُمۡ رَحِيمٗا – وَمَن يَفۡعَلۡ ذَٰلِكَ عُدۡوَٰنٗا وَظُلۡمٗا فَسَوۡفَ نُصۡلِيهِ نَارٗاۚ وَكَانَ ذَٰلِكَ عَلَى ٱللَّهِ يَسِيرًا

‘আর তোমরা নিজেদের হত্যা করো না। নিশ্চয়ই আল্লাহ তোমাদের প্রতি দয়ালু। যে কেউ অবিচার ও সীমালঙ্ঘন বশত: আত্মহত্যা করে অবশ্যই আমি তাকে জাহান্নামের আগুনে প্রবেশ করাবো। আল্লাহর পক্ষে তা সহজসাধ্য।’

সূরা আন-নিসা, আয়াত : ২৯-৩০

আত্মহত্যার গুনাহ কি ক্ষমার অযোগ্য?

তবে যেহেতু শিরক ছাড়া অন্যান্য সকল গুনাহ ক্ষমা করা বা না করা আল্লাহর তাআলার ইচ্ছার ওপর নির্ভরশীল সেহেতু আত্মহত্যাকারী যদি তাওহীদ পন্থী হয়ে থাকে তাহলে আল্লাহ তাআলা ইচ্ছা করলে তাকে ক্ষমা করতেও পারেন।

অন্যথায় জাহান্নামে তার উপযুক্ত শাস্তি দেয়ার পর তার ঈমান ও তাওহীদের কারণে অবশেষে জান্নাতে প্রবেশ করাবেন।

আরও পড়ুনঃ আত্মহত্যা: ইসলাম কি বলে?

আল্লাহু আলাম।

উত্তর প্রদানেঃ
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
(লিসান্স, মদিনা ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, সউদী আরব)
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সউদী আরব।