প্রশ্ন: কখনো কখনো মানুষ উপকারীর উপকার স্বীকার তো করেই না আরও উল্টো বদনাম করে। তখন যদি তাদের মনে করিয়ে দেয়ার জন্য যা যা উপকার করেছে তার কিছুটা বলে তাহলে কি সেটা খোটা দেয়া হবে? যেহেতু ইসলামে খোটা দিয়ে তাদের দানকে নস্ট না করার জন্য বলা হয়েছে।

উত্তর : ইসলামে কারও উপকার করে খোটা দেয়া হারাম।

আল্লাহ তাআলা বলেনঃ

يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا لَا تُبْطِلُوا صَدَقَاتِكُم بِالْمَنِّ وَالْأَذَىٰ كَالَّذِي يُنفِقُ مَالَهُ رِئَاءَ النَّاسِ وَلَا يُؤْمِنُ بِاللَّـهِ وَالْيَوْمِ الْآخِرِ ۖ فَمَثَلُهُ كَمَثَلِ صَفْوَانٍ عَلَيْهِ تُرَابٌ فَأَصَابَهُ وَابِلٌ فَتَرَكَهُ صَلْدًا
“হে ঈমানদারগণ!তোমরা অনুগ্রহের কথা প্রকাশ করে এবং কষ্ট দিয়ে নিজেদের দান খয়রাত বরবাদ করো না সে ব্যক্তির মত যে নিজের ধন-সম্পদ লোক দেখানোর উদ্দেশ্যে ব্যয় করে এবং আল্লাহ ও পরকালের প্রতি বিশ্বাস রাখে না। অতএব, এ ব্যাক্তির দৃষ্টান্ত একটি মসৃণ পাথরের মত যার উপর কিছু মাটি পড়েছিল। অতঃপর এর উপর প্রবল বৃষ্টি বর্ষিত হলো, অত:পর তাকে সম্পূর্ণ পরিষ্কার করে দিল।

সূরা বাকারা: ২৬৪

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন:

ﻻ ﻳَﺪْﺧُﻞُ ﺍﻟْﺠَﻨَّﺔَ ﻣَﻨَّﺎﻥٌ
“সে ব্যক্তি জান্নাতে প্রবেশ করবে না যে উপকার করে খোটা দেয়।”

সুনান নাসাঈ, হা/ ৫৬৮৮, সহীহ, আলবানী “

খোটা কাকে বলে?

আপনি কাউকে দান করে, ঋণ দিয়ে বা কোন উপকার করে তাকে বলেন, তোমার কি মনে নেই আমি তোমাকে দান করেছিলাম, এই এই উপকার করেছিলাম? এটাকেই খােটা বলা হয়। এর মাধ্যমে আপনার দান-সদকা বা উপকার করার সওয়াব নষ্ট হয়ে যাবে।

আপনি যার উপকার করেছেন সে যদি আপনার সাথে খারাপ আচরণ করে বা আপনার ক্ষতি করে তাহলে এ জন্য সে গুনাহগার হবে। আপনি ধৈর্য ও সহশীলতার সাথে তার মোকাবেলা করবেন। কিন্তু আপনি যে তার উপকার করেছেন সেটা তুলে ধরে নিজে গুনাহগার হবেন না বা নিজের আমল নষ্ট করতে যাবেন না।
আল্লাহ তাওফিক দান করুন।

✒✒✒✒✒✒
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল মাদানি
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ সেন্টার, সৌদি আরব